Skip to content

অনলাইনে প্রতারক চক্রের বিভিন্ন ধরনের ফাদ ও তা থেকে নিজেক সুরক্ষিত রাখার উপায়।

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ

কেমন আছেন সবাই ? আশা করি মহান আল্লাহ তা’আলার অশেষ রহমতে অনেক ভাল আছেন।আপনাদের দোয়া ও ভালবাসায় আমিও অনেক ভাল আছি।

আজকে আলোচনা করবো স্প্যাম-মেইল বা স্প্যাম কল ও অনলাইন প্রতারক চক্রের হাত থেকে কিভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন।

আমরা অনেকেই প্রতিদিনি খবরা-খবরে দেখি থাকি অনেক জনের আইডি হ্যাক হয়ে গেছে কেউ আবার ভাইরাল ভিডিওর খপ্পরে পড়ে মহা বিপদে আছে।অনেকের আবার নিজের মোবাইল ব্যাংকিং এর টাকা জালিয়াতি করে আরেকজন নিয়ে যাচ্ছে ।চারিদিকে শুধু এই খবর গুলোই পাওয়া যায়।

ভেবে দেখেছেন কি?এমন প্রতারক চক্রের ফাদে আপনিও পড়তে পারেন।

তাই আপনাকে এখনি সাবধান হতে হবে ও নিজের অনলাইন ব্যাবহার সুরক্ষিত করতে হবে।তো কিভাবে সাবধান হবেন বা কিভাবে নিজেকে সতর্ক করবেন বা কিভাবে বুঝবেন এইটাই সে স্প্যাম মেসেজ বা কল যে আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে।
এরুপ সমস্যার সমাধানের জন্য আমি আজকে হাজির হয়েছি আপনাদের সামনে। তাহলে কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করা যাক।

স্প্যামিং কল:

স্প্যামিং কল এর সবচেয়ে বড় মাধ্যেম হলো আপনাকে বাংলাদেশি /বিদেশি নাম্বার দিয়ে কল করে তারা বাংলা/ইংলিশে কথা বলে আপনাকে একটি অস্থির জব অফার করবে।যেমন আপনি দৈনিক ঘরে বসেই ২ থেকে ৩ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন বা আপনাকে বলা হবে আপনি প্রতিমাসে এক লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন কোন প্রকার ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই।
এই জব অফার করার পর আপনাকে বলা হবে আপনি কি রাজি? যদি রাজি হয়ে থাকেন হোয়াটসঅ্যাপ বা টেলিগ্রামে জয়েন হন।
এই হোয়াটসঅ্যাপ ও টেলিগ্রামের মাধ্যমে আপনাকে তাদের ফাদে ফেলে আপনাকে মহা বিপদে ফেলবে।
উল্লেখ আমাকে ২৭ই মার্চ দুপুর ১:৪৫ মিনিটে বাংলাদেশের রবি নাম্বার থেকে স্প্যাম কল দিয়ে এমন একটি জব অফার করেছিলো।
অনেক সময় Unknown আন অফিশিয়াল নাম্বার থেকেও ফোন করে বিভিন্ন প্রকার অফার প্রদান করবে।

স্প্যামিং মেসেজ:

আপনাকে এমন একটি মেসেজ দেওয়া হবে যেখানে অনেক লোভনিয় অফার ও পুরুষ্কার গ্রহণের জন্য বলা হবে।বলা হবে আপনি bmw গাড়ি জিতেছেন আইফোন ১৫ পেয়েছেন ইত্যাদি ইত্যাদি। আপনি পুরুষ্কার নেওয়ার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন। লিংক গুলি যদি. Com/.in/.bd/.gov ইত্যাদি ডোমেইন নেম ছাড়া যদি লিংক থাকে তাহলে ভুলেও ঐ লিংকে ক্লিক করবেন না।
উল্লেখ মেসেজের লিংক গুলি এমন হবে http://gHagaHs.shah আমি আপনাদের বুঝানোর জন্য এমন ভাবে লিংক তৈরি করেছি। তাদের এমন লিংক গুলিতে কোন ডোমেইন নেম নেই।

স্প্যামিং মেইল:

আপনার জিমেইল ইনবক্সে হঠাৎ করেই মেসেজ আসলো আপনি লটারি পেয়েছেন অথবা আপনি ফ্রীতে যেকোন দেশের ট্রাভেলিং করার টিকিট পেয়েছেন।
আপনার অফারটি নিশ্চিত করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন।বিশ্বাস করুন এই লিংকে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনি যেকোন প্রকার বিপদে পড়তে পারেন।
আবার বিভিন্ন দেশের নামি দামি কোম্পানির নাম নিয়ে আপনাকে জব অফার করবে অথবা আপনাকে এমন কিছু বলবে যাতে আপনি তাদের ফাদে খুব সহজেই পা দিতে পারেন।

ফেসবুক স্প্যামিং বা সোশ্যাল মিডিয়ায় স্প্যা

বর্তমান সবচেয়ে মানুষ স্প্যামিং এর স্বীকার হচ্ছে সোশাল মিডিয়ায় হতে।
যেমন অল্প বয়সের মেয়েদের নোংরা ছবি বা ভাইরাল ভিডিও দেখিয়ে লিংকে ক্লিক করতে বলা হচ্ছে।
বিভিন্ন সেলেব্রেটিদের সাথে অনৈতিক কিছু কার্যাকালাপের সাথে জড়িয়ে তাদের লিংকে ক্লিক করতে বলা হচ্ছে।তাছাড়া ফেসবুকে বিভিন্ন অফার, ভাইরাল ভিডিও,নিউজ ইত্যাদির কথা বলে আপনাকে তাদের লিংকে ক্লিক করতে বলা হচ্ছে।এখন আপনি যদি এই রকম লিংকে ক্লিক করে থাকেন তাহলে আপনি তাৎক্ষণিক বিপদে পরতে পারেন।তবে ফেসবুকে অনেক স্প্যামিং মেসেজ/লিংক রুখে দাড়ানোর জন্য একটি টুলস বের করেছে। যেখানে আপনি যদি লিংকে ক্লিক করেন তাহলে ফেসবুক আপনাকে একটি মেসেজ দিবে যেখানে লেখা থাকবে Back To Safety। আপনি যদি এই লেখাতে ক্লিক করেন তাহলে আপনি ফিশিং লিংকের স্বীকার হবেন না।আবার যদি আপনি Continue Browser এ ক্লিক করেন তাহলে তাদের ফাদে পা দিয়ে দিবেন।

মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারক 

বর্তমান বাংলাদেশের মানুষ লেনদেনের ক্ষেত্রে বেশির ভাগ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যাবহার করে থাকে।আর বাংলাদেশে প্রতিদিন মোবাইল ব্যাংকিং এর প্রতি আগ্রহ বেড়েই চলছে।এর অন্যতম কারন মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যাবহার অতি সহজ।আপনি সহজেই যেকোন জায়গায় মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে টাকা পয়সা লেনদেন করতে পারবেন। তবে এই মোবাইল ব্যাংকিং যেমন সহজ ও নিরাপদ বলে দাবি করলেও অনেক কিছু ভুলের জন্য অনেক সময় অনিরাপদ হয়ে যায়।
মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারক চক্র আপনাকে ভুলভাল কিছু বুঝিয়ে আপনার মোবাইল ব্যাংকিং এর পিন তারা নিয়ে নিবে এবং আপনার ব্যাংকিং এর সকল টাকা তারা তাদের কাছে নিয়ে যা

উল্লেখ ভাবে আপনাকে মোবাইল ব্যাংকিং এর কাস্টমার সার্ভিস এর মতো কোন নাম্বার দিয়ে ফোন দেওয়া হলো এবং আপনাকে বলা হলো আমি অমুক এজেন্ট থেকে বলছি আপনার মোবাইল ব্যাংকিং এ একটি সমস্যা হয়েছে অথবা আপনি উপবৃত্তির টাকা পেয়েছেন।এরুপ সমস্যা বা টাকা নেওয়ার জন্য আমাদের একটু হেল্প করুন।হয়তো তারা আপনার কাছে সরাসরি পিন নাম্বার চাইবেন না ।আপনাকে বিভিন্ন ভাবে মাইন্ড হ্যাকের মাধ্যমে আপনার ব্যাংকিং এর পিন নাম্বার নিয়ে যাবে।পিন নাম্বার দেওয়ার পর আপনার একাউন্টের এক্সেস তাদের কাছে চলে যাবে সেই সাথে আপনার একাউন্টের সকল টাকা তারা নিয়ে যাবে।

 

চিন্তা করুন আপনার একটি পিন এর কারনে তারা আপনার কত বড় ক্ষতি করে ফেলতে পারে।

নিউজ মিডিয়ার মাধ্যমে স্প্যামিং :

অনেক সময় আমাদের সামনে এমন আজব আজব নিউজ আসে যা দেখার জন্য আমাদের গভীর আগ্রহ জেগে যায় অথবা রাস্তা পাশে বিভিন্ন কাগজে অনেক অফার বা চাকরির নিয়োগ দেখতে পায়।আর আমরা তাদের ঐ নিউজ দেখার জন্য তাদের ফাদে পা দিয়ে দেয়।আর তাদের ফাদে পা দেওয়ার পর পরি আমারা বিপদে পড়ে যাই।
উল্লেখ যেমন নাইজেরিয়াতে মানুষ না খেয়ে মারা যাচ্ছে কেন?আবার কম টাকায় এম্বি ও মিনিট কিনতে এই লিংকে ক্লিল করুন।মোটা অংকের এমাউন্ট দেখিয়ে বলবে এই চাকরি করতে এই লিংকে ক্লিক করে যোগাযোগ করুন।
চিন্তা করুন আপনি খুব সহজেই কিভাবে এতো ভাল অফার বা চাকরি পাবেন যেখানে আপনার কোণ প্রকার যোগ্যতার যাচাই না করেই এমন চাকরির অফার করছে।আবার তাদের লিংকে ক্লিক করতে বলছে।
যদি আপনি একটু মাথা ঠান্ডা করে চিন্তা করেন তাহলেই বুঝতে পারবেন আপনি কি সত্যিই প্রতারণার স্বীকার হচ্ছেন।

বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে স্প্যামিং :

অনেক সময় ফোনে লোভনিয় এড বা বিজ্ঞাপন আসে আবার আপনার মোবাইলে ভাইরাস আছে এরুপ অনেক বিজ্ঞাপন আসে।যা আমাদের চিন্তায় ফেলে দেয়।
আবার আইফোন জিতেছেন ১০লক্ষ টাকা পেয়েছেন।মেয়েদের ভিডিও দিয়ে বলা হচ্ছে আমার সাথে কথা বলতে এই লিংকে ক্লিক করুন।অনেক সময় ফোনের নোটিফিকেশনে খারাপ এডাল্ট ভিডিও বা পিক আসে।যেখানে তাদের টার্গেট থাকে এই রকম বিজ্ঞাপন দিয়ে আমাদের তাদের বানানো ফিশিং লিংকে ক্লিক করানো আর তাদের ফিশিং লিংকে ক্লিক করলেতো বুঝতেই পারছেন কি ঘটতে পারে।

কিভাবে সাবধান হবেন?

  • প্রথমে ফিশিং লিংক গুলি ক্লিক করা থেকে বিরিত থাকতে হবে।
  • এমন মেসেজ শেয়ার করা যাবেনা যেখানে লেখা থাকে ১০জন বা অন্যজনকে শেয়ার করলে আপনি অনেক অফার পাবেন।
  • ফেসবুকে back to safety লেখা আসার পরেও open in browser এ ক্লিক করা যাবেনা।
  • অন্য কারও পোস্টে আপনাকে ট্যাগ করার অপশন খোলা না রাখাই ভালো। এ ছাড়া সন্দেহজনক কোনো লিংকে ক্লিক করা উচিত নয়। কারণ, এটি আপনাকে ভাইরাস বা ফিশিং মেইল হ্যাকারদের সাইটে নিয়ে যেতে পারে।
  • অপরিচিত-পরিচিত বা বন্ধু- বান্ধব যে কাউকে কোন ভাবেই নিজের ব্যাক্তিগত তথ্য ও ব্যাংকিং /সোশাল মিডিয়ার পিন নাম্বার দেওয়া যাবেনা।
    মনে রাখবেন মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানি কখনো আপনার পিন নাম্বার জানতে চাইবে না।
  • কাউকে নিজের মেইলের এক্সেস এডমিন হিসেবে দেওয়া যাবেনা।
  • লোভোনিয় অফার গুলি থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে।
  • ফেসবুকে ভুয়া লিংকের ছবি বা ভাইরাল ভিডিও দেখতে এই লিংকে ক্লিক করুন এই রকম লিংক গুলিতে ক্লিক করা যাবেনা।
  • স্প্যামিং কল আসলে বা মেসেজ আসলে তা এড়িয়ে যাবেন।ফোন কল রিসিভ করলে কেটে দিবেন এবং মেসেজ আসলে ডিলিট করে দিবেন।
  • বিশেষ কোন দিনে এতো এম্বি ফ্রী পেতে এই লিংকে ক্লিক করুন এরকম মেসেজ থেকে দূরে থাকবেন।
  • যতই লোভনিয় এড আসুক এডে ক্লিক করবেন না।প্রয়োজন হলে এডগার্ড বা এড ব্লক ব্যাবহার করবেন।

স্প্যামিং বা হ্যাকিং এর স্বীকার হলে কি করবেন?

অনেক সময় ফোনে লোভনিয় এড বা বিজ্ঞাপন আসে আবার আপনার মোবাইলে ভাইরাস আছে এরুপ অনেক বিজ্ঞাপন আসে।যা আমাদের চিন্তায় ফেলে দেয়।
আবার আইফোন জিতেছেন ১০লক্ষ টাকা পেয়েছেন।মেয়েদের ভিডিও দিয়ে বলা হচ্ছে আমার সাথে কথা বলতে এই লিংকে ক্লিক করুন।অনেক সময় ফোনের নোটিফিকেশনে খারাপ এডাল্ট ভিডিও বা পিক আসে।যেখানে তাদের টার্গেট থাকে এই রকম বিজ্ঞাপন দিয়ে আমাদের তাদের বানানো ফিশিং লিংকে ক্লিক করানো আর তাদের ফিশিং লিংকে ক্লিক করলেতো বুঝতেই পারছেন কি ঘটতে পারে।

কিভাবে সাবধান হবেন?

  • প্রথমে ফিশিং লিংক গুলি ক্লিক করা থেকে বিরিত থাকতে হবে।
  • এমন মেসেজ শেয়ার করা যাবেনা যেখানে লেখা থাকে ১০জন বা অন্যজনকে শেয়ার করলে আপনি অনেক অফার পাবেন।
  • ফেসবুকে back to safety লেখা আসার পরেও open in browser এ ক্লিক করা যাবেনা।
  • অন্য কারও পোস্টে আপনাকে ট্যাগ করার অপশন খোলা না রাখাই ভালো। এ ছাড়া সন্দেহজনক কোনো লিংকে ক্লিক করা উচিত নয়। কারণ, এটি আপনাকে ভাইরাস বা ফিশিং মেইল হ্যাকারদের সাইটে নিয়ে যেতে পারে।
  • অপরিচিত-পরিচিত বা বন্ধু- বান্ধব যে কাউকে কোন ভাবেই নিজের ব্যাক্তিগত তথ্য ও ব্যাংকিং /সোশাল মিডিয়ার পিন নাম্বার দেওয়া যাবেনা।
    মনে রাখবেন মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানি কখনো আপনার পিন নাম্বার জানতে চাইবে না।
  • কাউকে নিজের মেইলের এক্সেস এডমিন হিসেবে দেওয়া যাবেনা।
  • লোভোনিয় অফার গুলি থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে।
  • ফেসবুকে ভুয়া লিংকের ছবি বা ভাইরাল ভিডিও দেখতে এই লিংকে ক্লিক করুন এই রকম লিংক গুলিতে ক্লিক করা যাবেনা।
  • স্প্যামিং কল আসলে বা মেসেজ আসলে তা এড়িয়ে যাবেন।ফোন কল রিসিভ করলে কেটে দিবেন এবং মেসেজ আসলে ডিলিট করে দিবেন।
  • বিশেষ কোন দিনে এতো এম্বি ফ্রী পেতে এই লিংকে ক্লিক করুন এরকম মেসেজ থেকে দূরে থাকবেন।
  • যতই লোভনিয় এড আসুক এডে ক্লিক করবেন না।প্রয়োজন হলে এডগার্ড বা এড ব্লক ব্যাবহার করবেন।

স্প্যামিং বা হ্যাকিং এর স্বীকার হলে কি করবেন?

  • যেকোন সার্ভার ক্রাইমে যদি প্রতারিত হয়ে থাকেন তাহলে নিজ থানায় যোগাযোগ করবেন অথবা ৯৯৯ এ কল দিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে সাহায্য চাইবেন।
  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হ্যাকিং ব্ল্যাকমেইলিং অথবা কোনো রকম লাঞ্ছনার শিকার হলে সাইবার পুলিশ সেন্টারে সরাসরি নিজে এসে অভিযোগ জানাতে পারেন। অথবা নিুবর্ণিত যে কোনো মাধ্যমে অভিযোগ পাঠাতে পারেন- হটলাইন: ০১৭৩০৩৩৬৪৩১ ই-মেইল: smmcpc2018¦gmail.com ফেসবুক পেজ:https://www.facebook.com/ cpccidbdpolice
  • গ্রামে কোন ব্যাক্তির কাছে প্রতারিত হলে গ্রাম আদালত বা গ্রামে শালিস বসাবেন।
  • ই-মেইলে অভিযোগ জানাতে পারেন [email protected] এই ঠিকানায় ।
  • যদি পরিচয় গোপন রেখে অভিযোগ করতে চান, তাহলে গুগল প্লেস্টোর থেকে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ডিভিশনের ‘হ্যালো সিটি’ বা ‘বিডি পুলিশ হেল্পলাইন’ অ্যাপ নামিয়ে নিতে হবে। এই অ্যাপ ব্যবহার করে পাঠাতে পারবেন আপনার ব্যক্তিগত তথ্য। এ ছাড়া ‘রিপোর্ট টু র‍্যাব’ অ্যাপ থেকেও সমস্যার কথা জানানো যায়।
  • সাইবার পুলিশ সেন্টার, সিআইডি, ফোন: ০১৩২০০১০১৪৮। ওয়েব পেজ ঠিকানা https://cid.gov.bd  ই-মেইল: [email protected]
  • সরাসরি কথা বলার প্রয়োজন হলে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ডিভিশনের সাইবার ক্রাইম ইউনিট অফিসে যেতে হবে। ঠিকানা : ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, ৩৬, শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সরণি, রমনা, ঢাকা-১০০০

অভিযোগপত্রে যে বিষয়গুলো উল্লেখ করবেন

  • সাইবার অপরাধ ঘটার বিস্তারিত বর্ণনা করবেন।
  • ঘটনার তারিখ ও সময় উল্যেখ করবেন
  • আপনি যে সফটওয়্যার, ওয়েবসাইট বা পরিষেবা ব্যবহার করছিলেন সেটি উল্লেখ করবেন।
  • কোন ধরনের আক্রমণ (হ্যাকিং, ফিশিং বা অন্য কিছু) ঘটেছে, তা উল্লেখ করবেন।
  • যদি আপনার কোনো আইডি বা পাসওয়ার্ড চুরি হয়ে যায়, সেটি উল্লেখ করবেন।
  • সংশ্লিষ্ট স্ক্রিনশট, লিংক, অডিও/ভিডিও ফাইল অথবা কাগজপত্র সকল তথ্য সাথে করে নিয়ে যাবেন।

এইভাবে নিজেকে সাবধানে থাকতে হবে এবং বিপদে পড়ে গেলে না ঘাবড়িয়ে সমাধানের পথে হাটতে হবে।

পরিশেষে আর কথা না বাড়িয়ে আজ এইখানেই বিদায় নিচ্ছি আমি

সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন বিদায় নিচ্ছি,ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *